logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo
star Bookmark: Tag Tag Tag Tag Tag
Bangladesh

২৭ বছর পর বাজিতপুরে আ’লীগের সম্মেলন

দীর্ঘ ২৭ বছর পর কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর উপজেলায় আওয়ামী লীগের সম্মেলন হতে চলেছে। আগামী কাল ১১ নভেম্বর (সোমবার) সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে।

জেলার ১৩টি উপজেলার মধ্যে অন্যতম উপজেলা বাজিতপুর। দীর্ঘ ২৭ বছর ধরে এ উপজেলায় আওয়ামী লীগের সম্মেলন হয়নি। সম্মেলন না হওয়ার কারণে দলীয় রাজনীতির চর্চা ও সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডে স্থবিরতা দেখা দেয়।

আগামি ১১ নভেম্বর দলের সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করায় মাঠ থেকে তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মধ্যে উৎসাহ-উদ্দীপনা দেখা দিয়েছে। ফিরে এসেছে রাজনৈতিক প্রাণচাঞ্চল্য। সম্মেলনের উৎচ্ছাস দেখে মনে হবে যেন জাতীয় কোনো নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। চায়ের দোকান থেকে শুরু করে উঠান বৈঠক পর্যন্ত করা হচ্ছে। রাস্তা ঘাট ছেয়ে গেছে পোস্টার ও ব্যানারে। সম্মেলনের মাধ্যমে প্রাণবন্ত হয়ে উঠবে বাজিতপুরের আওয়ামী লীগের রাজনীতি, এমনটাই মনে করছেন স্থানীয় নেতা-কর্মীরা।

কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর উপজেলায় ১৯৯১ সালে আওয়ামীলীগের সর্বশেষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সেই কমিটির সভাপতি ছিলেন প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা মিজবাহ উদ্দিন আহাম্মদ ও সাধারণ সম্পাদক ছিলেন অ্যাডভোকেট আব্দুর রহমান বোরহান।

এরপর ১৯৯৭, ২০০১ এবং ২০১২ সালে গঠিত হয় তিনটি আহ্বায়ক কমিটি। সর্বশেষ কমিটির আহ্বায়ক ছিলেন কিশোরগঞ্জ-৫ (বাজিতপুর-নিকলী) আসনে আওয়ামী লীগের টানা তিনবারের সাংসদ সদস্য আফজাল হোসেন।

দলের মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীরা বলছেন, তিনি পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনে আগ্রহী হয়ে উঠেছেন। তাই তার হাত ধরে আওয়ামী লীগের চলমান সাংগঠনিক ‘স্থবিরতা’ কাটিয়ে ওঠার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে।

আগামি ১১ নভেম্বরের সম্মেলনে শুধু সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচন হবে। এতে ৩৮৭ জন কাউন্সিলর নিজেদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দেবেন।

এদিকে রাত পোহালেই সম্মেলন কিন্তু এখন পর্যন্ত কোনো নেতা সভাপতি পদে প্রার্থিতা ঘোষণা করেননি। তবে সাধারণ সম্পাদক পদে পাঁচ-ছয়জনের নাম শোনা যাচ্ছে। তাদের মধ্যে অন্তত পাঁচজন মাঠে সক্রিয় থেকে কাউন্সিলরদের সমর্থন আদায়ের চেষ্টা করে চলেছেন।

সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হয়েছেন উপজেলা যুবলীগ সভাপতি ও সাবেক ছাত্রনেতা গোলাম রসুল দৌলত, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক ও বাজিতপুর কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক জিএস রকিবুল হাসান শিবলী, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আব্দুল্লাহ আল মামুন, কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক নেতা মোস্তাক আহমেদ দাদাভাই ও ছাত্রলীগের সাবেক নেতা শামসুর রহমান চঞ্চল।

সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী ছাত্রলীগের সাবেক নেতা শামসুর রহমান চঞ্চল বলেন, ‘গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হলে তৃণমূল মূল্যায়িত হবে। সাধারণ সম্পাদক পদে যেই নির্বাচিত হোক আমরা সবাই একসঙ্গেই কাজ করব এবং দলকে আরো সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাব।’

আরেক প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ‘পূর্ণাঙ্গ কমিটি না থাকার কারণে দলের তৃণমূল ও ত্যাগী নেতারা উপেক্ষিত ছিল। সম্মেলনের মাধ্যমে পূর্ণাঙ্গ কমিটি হলে তৃণমূল ও ত্যাগী নেতারা দলে মূল্যায়িত হবে।’

অপর প্রার্থী বাজিতপুর কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক জিএস রকিবুল হাসান শিবলী সম্মেলনের ব্যাপারে বলেন, ‘দীর্ঘদিন সম্মেলন না হওয়ায় আওয়ামী লীগের পাশাপাশি সহযোগী সংগঠনগুলোর কার্যক্রমও স্থবির ছিল। অনেক দেরিতে হলেও সম্মেলন হওয়ায় আওয়ামী লীগের সকল সংগঠনের নেতাকর্মীদের মাঝে উৎসাহ-আমেজ লক্ষ্য করা যাচ্ছে। ‘

তবে ‘কে হচ্ছেন সভাপতি?’ ‘সাধারণ সম্পাদকই বা কাকে করা হচ্ছে?’ ঘুরে ফিরে এসব আলোচনাই এখন স্থানীয় নেতাকর্মীদের মুখে মুখে। আলোচনায় অনেকের মুখে শোভা পাচ্ছে বর্তমান কমিটির আহ্বায়ক কিশোরগঞ্জ-৫ (বাজিতপুর-নিকলী) আসনের এমপি আফজাল হোসেনের নাম। শেষ পর্যন্ত তিনিই হতে পারেন সভাপতি। এখন পর্যন্ত আর কোনো প্রবীণ বা সিনিয়র নেতা সভাপতি পদে আগ্রহ প্রকাশ করেননি। তাই স্থানীয় নেতাকর্মীরা তাকেই সভাপতির আসনে দেখছেন।

এ ব্যাপারে মো. আফজাল হোসেন বলেন, ‘যে কেউ প্রার্থী হতে পারেন। এ বিষয়টি একেবারেই উন্মুক্ত।’ স্মরণকালের সেরা সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে এটি। এ সম্মেলনকে ঘিরে আমাদের মাঝে কোনো প্রকার অস্থিতিশীল পরিবেশ বা বিশৃঙ্খলা নেই। প্রত্যেককেই যে যার মত দলীয় সমর্থন আদায়ে মাঠে কাজ করে যাচ্ছেন।’

সম্মেলনের প্রস্তুতির ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘আমরা যে ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি, জেলা পর্যায়েও এমন ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয় না। আমরা আশাবাদী ১১ নভেম্বর একটি সুন্দর ও সুষ্ঠু পরিবেশে সম্মেলন করতে সক্ষম হব।’

সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এমপি। উদ্বোধন করবেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট কামরুল আহসান শাহজাহান। সভাপতিত্ব করবেন, বর্তমান আহ্বায়ক কিশোরগঞ্জ-৫ (বাজিতপুর-নিকলী) আসনের এমপি আলহাজ্ব মো. আফজাল হোসেন।

কিশোরগঞ্জ/রুমন চক্রবর্তী/সনি

Themes
ICO