Bangladesh

‘এবার যখন ধরব একেবারে ফাইনাল’

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও সংবিধান অবমাননার অভিযোগে হেফাজতে ইসলামের আমির জুনাইদ বাবুনগরী এবং যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হককে গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছে সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবীদের ৬০টি সংগঠন। গতকাল মঙ্গলবার বেলা ৩টার দিকে নগরীর মৎস্য ভবন থেকে শুরু হয়ে শাহবাগ হয়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের ছবির হাট পর্যন্ত অনুষ্ঠিত মানববন্ধন থেকে এ দাবি জানানো হয়। কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, ‘মামুনুল হককে তার বক্তব্য প্রত্যাহার করতে হবে। না হলে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী মানুষ তার জবাব দেবে। এর পরিণাম ভালো হবে না। দৃষ্টান্তমূলক পরিণামের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে একটি দেশ ও সংবিধান পেয়েছি। যার জন্ম না হলে স্বাধীন বাংলাদেশ হতো না, সেই সর্বকালের সর্বশেষ্ঠ বাঙালি শেখ মুজিবুর রহমান যে সংবিধান এনেছেন- একটি বিশেষ সাম্প্রদায়িক শক্তি সেটি বিনষ্ট করার জন্য উঠেপড়ে লেগেছে। এরা কারা? যারা স্বাধীনতা চায়নি। স্বাধীনতার পর এই ভাস্কর্য বিভিন্ন স্থানে স্থাপিত হয়েছে। হঠাৎ করে এ ধরনের উক্তি কিসের লক্ষণ? কার ইঙ্গিতে হচ্ছে? এটা কারও ব্যক্তিগত খামখেয়ালি

নাকি সুপরিকল্পিত, সেটা ভালোভাবে খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নিতে হবে।’

ভাস্কর্যের বিরোধিতাকারীদের হুশিয়ারি দিয়ে আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, ‘স্বাধীনতাকামী মানুষরা কলাগাছ নয়, মান্দার গাছ। কেউ ইচ্ছে করে পিঠ ঘষতে এলে তার পিঠের চামড়া উঠে যাবে। দেশের মানুষ ধর্মপ্রাণ মুসলমান। দেশে কিছু লোক ধর্মব্যবসায়ী হয়ে ইসলাম ধর্মের অবমাননা ও অপব্যাখ্যা করবেন। আর ইসলামপ্রিয় মানুষ কিছু বলবে না, এটা হতে পারে না। ধর্ম কারও কাছে লিজ দেওয়া হয়নি। ধর্মের রক্ষক আপনারা কয়েকজন নন, যারা ইসলামকে বিশ্বাস করে তারাই ধর্মের রক্ষক। আমি বিশ্বাস করি, অন্য ধর্মাবলম্বীরাও কখনো ইসলামের অবমাননাকর কোনো উক্তি সহ্য করে না। এ ধরনের উক্তি প্রত্যাহার করতে হবে। যদি প্রত্যাহার না করেন, দেখেন নাই ’৫২ সালে তার জবাব বাংলার মানুষ কীভাবে দিয়েছিল। ’৭১ সালে ধর্মব্যবসায়ীদের জবাব কীভাবে দিয়েছিল। দয়া করে ইতিহাস বুঝতে চেষ্টা করুন। ইতিহাসের প্রতি সম্মান জানান। ভাস্কর্য মুসলিম অধ্যুষিত সব রাষ্ট্রেই আছে। আপনাদের সাধের পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও সৌদি আরবসহ প্রায় সব রাষ্ট্রেই আছে। আপনারা সেখানে কোনো কথা বলেন না। হঠাৎ করে বাংলাদেশের প্রতি কেন আপনাদের দৃষ্টি হলো? এসব দলবাজির জবাব জনগণ রাজপথেই দেবে। তার পরিমাণ ভালো হবে না। অতীতেও হয়নি, ভবিষ্যতেও হবে না।’

যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ বলেন, ‘কোথা থেকে টাকা আসছে, কী তাদের (মৌলবাদী ও সাম্প্রদায়িক শক্তি) অ্যাজেন্ডা- এসব ব্যাপারে প্রশাসনিক তদন্ত হওয়া উচিত। প্রশাসনের তদন্তের মাধ্যমে আসল ষড়যন্ত্রকারী ও তাদের মদদদাতাদের চিহ্নিত করতে হবে এবং এই দেশের মাটিতেই তাদের শাস্তি দিতে হবে। তাদের একেবারে নির্মূল করে দিতে হবে, যেন বারবার আমাদের স্বাধীনতা-মুক্তিযুদ্ধের চেতনা-দেশপ্রেমকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে না পারে।’ যুবলীগ চেয়ারম্যান আরও বলেন, ‘এবার যখন ধরব, একেবারে ফাইনাল হয়ে যাবে। এবার আর কোনো কম্প্রোমাইজ (আপস) নয়। বাংলাদেশে একটা কুচক্রী মহল সৃষ্টি করে ফায়দা লোটা- এটা বারবার হবে না। এবারই আমরা এটা ফাইনাল করব। প্রশাসনকে আহ্বান করছি, তদন্তের মাধ্যমে এদের চিহ্নিত করুন। আমরা মাঠে আছি দেখে নেব তাদের। চোরের ১০ দিন তো গেরস্থের একদিন।’ সংগঠনের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘আপনারা সজাগ ও সোচ্চার থাকবেন। আমরা এদের দমন করব, ইনশাআল্লাহ।’

মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির, সাংবাদিক আবেদ খান, ইতিহাসের অধ্যাপক ও গবেষক মুনতাসীর মামুন, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ, সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের মহাসচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা হারুন হাবীব, বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্র্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রানা দাশগুপ্তসহ আরও অনেকে।

Football news:

Neville compared Liverpool to Coventry after Manchester United's win. Probably because of the color of the uniform
Vladimir Gazzaev held the first training session with Siena
Alessandro Costacurta: Inter are the favourites for both the Milan derby and the Scudetto
The Valencia player tested positive for antigens. Yesterday was a match with Atletico
Tottenham topped the rating of the most eco-friendly clubs in the Premier League. Manchester United, Arsenal, Brighton and Man City-in the top 5, Liverpool-7th
Manchester United and Liverpool put on a show in the cup. The sponsor of the entertainment is the bold positions of Trent and Rashford (United have better realized this advantage)
Roman Abramovich: Lampard's status at Chelsea remains unshakeable. He is an iconic figure for the club