Bangladesh
This article was added by the user . TheWorldNews is not responsible for the content of the platform.

জানেন, ব্লেড আবিষ্কারের আগে কীভাবে শেভ করতো মানুষ?

জানেন, ব্লেড আবিষ্কারের আগে কীভাবে শেভ করতো মানুষ?

জানেন, ব্লেড আবিষ্কারের আগে কীভাবে শেভ করতো মানুষ?

এক্সক্লুসিভ ডেস্ক : চুল কাটার ইতিহাস মানব সভ্যতার মতোই প্রাচীন। প্রস্তর যুগের সভ্যতা থেকে এটি চলে আসছে। প্রতিটি যুগেই পুরুষদের দাড়ি কামানোর প্রয়োজনীয়তা ব্যক্তিগত পছন্দ, ফ্যাশন, আবার কখনো কখনো সাংস্কৃতিক বিশ্বাস ইত্যাদির উপর নির্ভর করে।

বর্তমানে শেভিং-র জন্য আমাদের কাছে আধুনিক রেজার এবং ইলেকট্রিক শেভারের মত সরঞ্জাম রয়েছে। কিন্তু কখনো ভেবেছেন প্রাচীনকালে যখন এই সরঞ্জামগুলি ছিল না, তখন লোকেরা কিভাবে সেভিং করতো? এবার জেনে নেওয়া যাক পুরুষরা দাড়ি কাটার জন্য কি কি পদ্ধতি ব্যবহার করত।

প্রস্তর যুগে মানুষ পাথরকে ঘষে ঘষে ধারালো ও মসৃণ করত এবং তাদের দৈনন্দিন চাহিদা অনুযায়ী পাথরগুলোকে বিভিন্ন আকার দেওয়া হতো। তখনকার দিনে ক্লিন শেভের চল ছিল না। তাই অবাঞ্ছিত চুলগুলি কেটে ফেলা হতো যাতে তাদের শরীরে ঘাম না জমে এবং ইনফেকশন না হয়।

আজও অনেক উপজাতী এই পাথর দিয়ে তৈরি ধারালো হাতিয়ার ব্যবহার করে। সেইসময় লোম অপসারণের জন্য আরও একটি পদ্ধতি প্রচলিত ছিল। অবাঞ্চিত লোম অপসারণের জন্য দুটি খোলককে একসাথে মিশ্রিত করে চিমটার আকার দেওয়া হত। বিশেষ করে এই কাজে ঝিনুকের খোলক ব্যবহার করা হত।

সভ্যতার বিকাশের সাথে সাথে মানুষ ব্রোঞ্জ যুগে প্রবেশ করে। এরপর ধাতুর তৈরি ধারালো বস্তুগুলো পাথরের চেয়ে আরো বেশি শক্তিশালী ও কার্যকর হয়ে ওঠে। অবাঞ্ছিত লোম দূর করার জন্য ধাতু থেকে বিভিন্ন ধরনের হাতিয়ার তৈরি করা হয়েছিল।

মিশরীয় সভ্যতায় শেভিং-র এই সরঞ্জামগুলির উল্লেখ রয়েছে। মিশরের অনেক সমাধিতে এই সরঞ্জামগুলি পাওয়া গেছে। তারা যখন মারা গিয়েছিল তখন তাদের মৃতদেহের সাথে এই জিনিসগুলিরও সমাধি দেওয়া হয়েছিল।