Bangladesh

ঝুঁকিপূর্ণ বেড়িবাঁধ, আতঙ্কে শরণখোলাবাসী

ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের প্রভাবে উপকূলজুড়ে বৃষ্টি শুরু হয়েছে। বৃষ্টির সাথে ঝড়ো হাওয়াও বইছে। সেইসাথে বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে নদ-নদীর পানি।

সময় যত গড়াচ্ছে সিডর ও আইলা বিদ্ধস্ত বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলাবাসীর আতঙ্ক তত বাড়ছে। একদিকে সুন্দরবনের কোলাঘেষা বলেশ্বর নদীর তীরে এই উপজেলার অবস্থান। অন্যদিকে পানি উন্নয়ন বোর্ডের ৩৫/১ এর পোল্ডারের ক্ষতিগ্রস্ত বেড়িবাঁধ।

দুই মিলিয়ে ঝড় ও জলচ্ছ্বাসের খবরে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে এলাকাবাসী। এবারের শঙ্কা অনেক বেশি। কারণ, কয়েকদিন আগে ৩৫/১ পোল্ডারের শরণখোলা উপজেলার সাউথখালী উইনিয়নের গাবতলা ও বগি অংশের একশ মিটারের উপরে বেড়িবাঁধ নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। বেড়িবাঁধ সংলগ্ন আশার আলো মসজিদ কাম সাইক্লোন শেল্টারটিও মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। ফলে এলাকাবাসীর মধ্যে কয়েকগুণ বেশি আতঙ্ক তৈরি হয়েছে।

আম্ফান আঘাত হানলে ক্ষতিগ্রস্ত বেড়িবাঁধ দিয়ে পানি ঢুকে সাউথখালী ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রাম প্লাবিত হবে। গবাদি পশু ও জানমালের ব্যাপক ক্ষতির শঙ্কা রয়েছে।

স্থানীয় নান্টু শেখ, রহিম, লুলু মল্লিক জানান, বলেশ্বর নদীর পাশে বেড়িবাঁধ না থাকায় সিডরের সময় শরণখোলা উপজেলাবাসী সব থেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এবার বেড়িবাঁধ থাকার পরও আমরা শঙ্কায় আছি। বেড়িবাঁধের যে অবস্থা একটু জলচ্ছ্বাস হলেই তাদের গ্রামসহ কয়েকটি গ্রাম ভেসে যাবে।

তারা অভিযোগ করে বলেন, শুকনো মৌসুমে বার বার বলার পরও পানি উন্নয়ন বোর্ড এই ঝুঁকিপূর্ণ বেড়িবাঁধ সংস্কার করেনি।’

স্থানীয় ইউপি সদস্য রিয়াদুল পঞ্চায়েত বলেন, ‘‘যে কোনো ঝড় ও জলচ্ছ্বাসে শরণখোলা উপজেলার সাউথখালী ইউনিয়নের বগী, গাবতলা, চালতেবুনিয়াসহ কয়েকটি গ্রাম অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এর মধ্যে কয়েকদিন আগে জলচ্ছ্বাস থেকে রক্ষার জন্য দেওয়া বেড়িবাঁধ ভেঙে গেছে। ফলে এলাকার মানুষের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

‘জীবন বাঁচানোর জন্য আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার সুযোগ থাকলেও মূল্যবান জিনিস ও গবাদি পশু রেখে অনেকেই আশ্রয় কেন্দ্রে যেত রাজি হন না। এছাড়া আমাদের এলাকায় মানুষের তুলনায় আশ্রয়কেন্দ্রের পরিমাণ অনেক কম। সবকিছু মিলিয়ে ঘূর্ণিঝড়টি যদি তার সর্বোচ্চ শক্তি নিয়ে আঘাত হানে, তাহলে সাউথখালী ইউনিয়নবাসীর অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে যাবে।”

শরণখোলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য ও ইউপি সদসন্য হালিম শাহ বলেন, ‘সোমবার বিকেল থেকেই আমরা স্থানীয়দের সতর্ক করে মাইকিং শুরু করেছি। এলাকার বৃদ্ধ ও প্রতিবন্ধিদের আশ্রয়কেন্দ্রে নেওয়া শুরু হয়েছে। আমাদের স্বেচ্ছাসেবকরা সব সময় প্রস্তুত রয়েছেন। যেকোনো পরিস্থিতিতে তারা মানুষের পাশে থাকবে।’

শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরদার মোস্তফা শাহীন বলেন, ‘ঝুঁকিপূর্ণ বেড়িবাঁধের কাছে আশার আলো মসজিদ কাম সাইক্লোন শেল্টারে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। ওই এলাকার মানুষদের জন্য আশপাশের সুবিধাজনক ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্রগুলো প্রস্তুত রাখা হয়েছে। তাদেরকে আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে। কর্তৃপক্ষের নির্দেশ পেলে সবার আগে ঝুঁকিপূর্ণ বাঁধ এলাকার মানুষদের নিরাপদ স্থানে নেওয়া হবে। তাদের জন্য আমাদের সর্বোচ্চ প্রস্তুতি রয়েছে।’

বাগেরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. নাহিদুজ্জামান খান বলেন, ‘সম্প্রতি ভেঙ্গে যাওয়া স্থানে আমরা রিং বেড়িবাঁধ দিয়েছি। আম্ফানে যদি আবারও ওই স্থান ক্ষতিগ্রস্ত হয়, তাৎক্ষণিকভাবে মেরামতের জন্য আমাদের সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে।’

বাগেরহাট/সনি

Football news:

Rivaldo: talking about VAR, Barcelona is trying to distract attention from the real problems of the club
Ribery about the robbery: the Fans and Florence to support me. Fiorentina forever!
Vinicius tested negative for the coronavirus. He will be able to play with Alaves
The tournament-the return of MLS-is still a failure. Spend in Florida (7-11 thousand cases per day), players are afraid of the virus and complain about food
Zinedine Zidane: I'm Tired of saying that real have not won anything yet. Ahead of the next final
David Silva: I will miss Manchester City💙
Giovanni Simeone: I Would like to play under my father's guidance. I dream of Atletico