স্বামীর লাশের পাশে দুইদিন ধরে শুয়েছিলেন বৃদ্ধা স্ত্রী। তাদের ৪০ বছর বয়সী ছেলে পাশের ঘরে থাকলেও দু’দিন তিনি কিছুই জানতে পারেননি। পরে লাশের দুর্গন্ধ পেয়ে বুঝতে পারেন বিষয়টি।

পুলিশ সোমবার ওই ব্যক্তির (৮০) গলিত লাশ উদ্ধারের পর তার অসুস্থ স্ত্রীকে হাসপাতালে ভর্তি করেছে। পল্লবী থানার এসআই শফিকুল ইসলাম জানান, ওই বাড়ির পরিবেশ দেখে তার স্বাভাবিক মনে হয়নি।

মৃত ব্যক্তির নাম রোকনুদ্দীন আহমেদ। তিনি বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষক ছিলেন বলে জানা গেছে। তবে কোন সময়কালে তিনি শিক্ষকতা করতেন, তা জানাতে পারেনি পুলিশ।

রোকনুদ্দীনের স্ত্রী নীলুফার ইয়াসমিনকে হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ওই বাসায় ছিলেন তাদের ছেলে শাহরিয়ার আহমেদ রূপম (৪০)। তিনি পুলিশকে জানিয়েছেন, দুদিন আগে তিনি তার বাবা-মাকে তাদের ঘরে গিয়ে দেখে এসেছিলেন। তখন তারা শুয়ে ছিলেন। সোমবার দুর্গন্ধ পেয়ে ওই ঘরে গিয়ে দেখেন যে তার বাবা মৃত, শরীর ফুলে গেছে। পাশেই শোয়া তার মা।

রুপম তখন ফোন করে প্রতিবেশীকে ঘটনাটি জানালে তারা থানায় খবর দেয়। অন্তত ৩৬ ঘণ্টা আগে রোকনুদ্দীনের মৃত্যু হয়েছে বলে পুলিশ ধারণা করছে।

পুলিশ জানতে পেরেছে, ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থী ছিলেন রূপম। কিন্তু লেখাপড়া শেষ করেননি। বিয়ে হলেও ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়।

পল্লবী থানার এসআই শফিকুল ইসলাম জানান, রূপম তার ঘর থেকে খুব একটা বের হতেন না। সব সময় দরজা লাগিয়ে রাখতেন। খাবারও সেভাবে খেতেন না। কোনো আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে এই পরিবারের তেমন যোগাযোগ ছিল না বলেও জানান তিনি।

অর্থসূচক/কেএসআর