Bangladesh
This article was added by the user . TheWorldNews is not responsible for the content of the platform.

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের ৭ উইকেটের জয়

ucb stock regular

বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে দারুণ শুরু পেয়েছিল শ্রীলঙ্কা। তবে বাংলাদেশের বোলারদের দুর্দান্ত বোলিংয়ে বড় সংগ্রহ গড়তে পারেনি শ্রীলঙ্কা। ১৪ ওভারের মধ্যে ১০৩ তুলে নেয়া শ্রীলঙ্কা থেমেছে ৯ উইকেট হারিয়ে ২৬৩ রান করে। এরপর মাত্র ৩ উইকেট হারিয়েই জয় তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ। হাফ সেঞ্চুরি পেয়েছেন লিটন দাস, তানজিদ তামিম ও মেহেদী হাসান মিরাজ। এমন পারফরম্যান্সের পর বলাই যায় বিশ্বকাপের আগে ব্যাটে-বলের প্রস্তুতি বেশ ভালোভাবেই সারছে টাইগাররা।

মাঝারি লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে বাংলাদেশকে দারুণ শুরু এনে দিয়েছেন তানজিদ হাসান তামিম ও লিটন দাস। শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ব্যাটিং অব্যাহত রেখেছেন তানজিদ। অন্যদিকে লিটন দেখে শুনে নিজের ইনিংস বড় করছেন। যদিও তানজিদের আগেই ৩৯ বলে হাফ সেঞ্চুরি করেছেন লিটন। খানিক বাদে ৫৩ বলে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন তানজিদও। এই দুজনে মিলে ১৩১ রানের জুটি গড়েছেন ওপেনিংয়ে।

তানজিদকে নিয়ে ওপেনিংয়ে ১৩১ রানের জুটির পর লিটন আউট হয়েছেন৫৬ বলে ৬১ রান করে। তিনি দুশান হেমান্থার টসড আপ ডেলিভারিতে সুইপ করতে গিয়ে ডিপ মিড উইকেটে ক্যাচ দিয়েছেন মাথিশা পাথিরানার হাতে। এরপর মেহেদী হাসান মিরাজকে নিয়ে বাংলাদেশের রান বাড়িয়েছেন তানজিদ। পেতে পারতেন সেঞ্চুরি ও। তবে লাহিরু কুমারার করা অফ স্টাম্পের বাইরের বলে আসালাঙ্কার হাতে মিড অফে আসালাঙ্কার হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হয়েছেন ৮৪ রান করা তানজিদ।

cwt

বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি তাওহীদ হৃদয়ও। নিজের খেলা প্রথম বলেই ডাউন দ্য উইকেটে খেলতে গিয়ে দুনিথ ওয়েলালাগের ফ্লাইটে পরাস্থ হয়ে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়েছেন তিনি। মিরাজও পেয়েছেন হাফ সেঞ্চুরির দেখা। ৪৮ বলে তিনি ৫০ পেরিয়েছেন। শেষ পর্যন্ত মুশফিকুর রহিমকে নিয়ে বাংলাদেশকে জিতিয়েই মাঠ ছেড়েছেন মিরাজ।

এর আগে টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে বাংলাদেশের বোলারদের ওপর ঝড় বইয়ে দিয়েছেন লঙ্কান দুই ওপেনার পাথুম নিশাঙ্কা ও কুশাল পেরেরা। এর মধ্যে এই দুজনে নাসুমের এক ওভারে তিন চারে নিয়েছেন ১৪ রান। যদিও খানিক বাদেই কাঁধে অস্বস্তি বোধ করায় রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে মাঠ ছাড়েন লঙ্কান ওপেনার পেরেরা। মাঠ ছাড়ার আগে তার ব্যাট থেকে আসে ২৪ বলে ৩৪ রান। এরপর নিশাঙ্কাকে সঙ্গ দিতে আসেন কুশাল মেন্ডিস। এই দুজনে মিলে ১৪ ওভারেই দলীয় একশো পূরণ করে শ্রীলঙ্কা। হাসান মাহমুদের করা ইনিংসের ১৪তম ওভারে লঙ্কান এই দুই ব্যাটার নিয়েছেন ১৯ রান। এর মধ্যে ছিল তিনটি চার ও একটি ছক্কার মার।

কুশাল মেন্ডিসকে ফিরিয়ে বাংলাদেশকে প্রথম উইকেটের স্বাদ এনে দিয়েছেন নাসুম আহমেদ। এই স্পিনারের করা ফুলার লেন্থের ডেলিভারিতে টপ এজ হয়ে নাজমুল হোসেন শান্তকে মিড উইকেটে ক্যাচ দিয়ে ফিরেছেন ১৯ বলে ২২ রান করা কুশাল।

LankaBangla securites single page

নতুন ব্যাটার সাদিরা সামারাবিক্রমাকে উইকেটে থিতু হতে দেননি শেখ মেহেদী। তার বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে লং অনে শান্তর দারুণ ক্যাচে ফিরেছেন ২ রান করা এই লঙ্কান ব্যাটার। এরপর ধনঞ্জয়া ডি সিলভাকে নিয়ে ৫২ বলে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন নিশাঙ্কা।

এই লঙ্কান ব্যাটারকেও সাজঘরে ফিরিয়েছেন মেহেদী। তার করা ফুলার ল্যান্থের ডেলিভারিতে স্কয়ার লেগ দিয়ে উড়িয়ে মারতে চেয়েছিলেন নিশাঙ্কা। যদিও ব্যাটে-বলে করতে পারেননি তিনি। লং অনে দাঁড়িয়ে সেই ক্যাচ লুফে নিয়েছেন শান্ত। এরপর আরও একটি উইকেট পেয়েছেন মেহেদী। এই স্পিনারের করা অফ স্টাম্পের বাইরের টসড আপ ডেলিভারিতে ড্রাইভ করতে চেয়েছিলেন চারিথা আসালাঙ্কা। তবে ঠিকমতো ব্যাটে বলে করতে না পারায় বল চলে যায় শর্ট কাভারে। সেখানে সহজ ক্যাচ নিয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ।

লঙ্কান অধিনায়ক দাসুন শানাকাকে ফিরিয়েছেন শরিফুল ইসলাম। অফ স্টম্প বরাবর করা ডিপ স্কয়ার লেগ দিয়ে উড়িয়ে মারতে চেয়েছিলেন শানাকা। সেখানে দুইবারের চেষ্টায় ক্যাচ নিয়েছেন তানজিম সাকিব। ফলে ৩ রানের বেশি যোগ করতে পারেননি শানাকা। এরপর একপ্রান্ত আগলে রেখে শ্রীলঙ্কার রান বাড়িয়েছেন ধনঞ্জয়া ডি সিলভা। এই লঙ্কান ব্যাটার মিরাজের করা অফ স্টাম্পের বাইরের বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে মিড অফে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের হাতে ক্যাচ দিয়েছেন। এর আগে দিমুথ করুনারত্নেকে মিড অফ থেকে ডিরেক্ট থ্রোতে রান আউট করেছেন মাহমুদউল্লাহ।

রান আউট হয়েছেন দুনিথ ওয়েলালাগেও। মেহেদীর করা ডেলিভারিতে শর্ট থার্ড ম্যান অঞ্চলে ঠেলে রান নেয়ার জন্য দৌড়েছিলেন দুশান হেমান্থা। তবে নন স্ট্রাইকে থাকা ওয়েলালাগে ক্রিজে ঢোকার আগেই স্টাম্প ভেঙ্গে দিয়েছেন উইকেটরক্ষক মুশফিকুর রহিম। ফলে সাজঘরে ফিরতে হয় ১০ রান করা এই ব্যাটারকে। ইনিংসের শেষ ওভারে ব্যাক অব দ্য হ্যান্ড ডেলিভারিতে হেমান্থাকে বিভ্রান্ত করে ফিরিয়েছেন তানজিম সাকিব। তবুও হেমান্থা ও লাহিরু কুমারার ব্যাটে লড়াইয়ের পুঁজি নিশ্চিত করে শ্রীলঙ্কা।

অর্থসূচক/এএইচআর