logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo
star Bookmark: Tag Tag Tag Tag Tag
Bangladesh

ডা. মোজাম্মেলের মৃত্যুতে সংসদে শোক প্রস্তাব গ্রহণ

ডা. মোজাম্মেলের মৃত্যুতে সংসদে শোক প্রস্তাব গ্রহণ

বাগেরহাট-৪ আসন থেকে নির্বাচিত চলতি সংসদের সরকার দলীয় সদস্য ডা. মো. মোজাম্মেল হোসেনের মৃত্যুতে জাতীয় সংসদে সর্বসম্মত শোক প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়েছে। এর আগে প্রস্তাবটির উপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে সরকার ও বিরোধী দলীয় সদস্যরা বলেছেন, ডা. মোজাম্মেলের মৃত্যুতে দেশবাসী একজন মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী নিবেদিত প্রাণ রাজনীতিবিদকে হারালো।

সোমবার বিকেলে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে এই আলোচনায় অংশ নেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য তোফায়েল আহমেদ, সভাপতিমন্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম, মতিয়া চৌধুরী, মোহাম্মদ নাসিম ও শাহাজান খান, সমাজকল্যাণ মন্ত্রী মো. নূরুজ্জামান আহমেদ, নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, সরকার দলীয় সদস্য আ ফ ম রুহুল হক, উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ ও আবুল কালাম আজাদ, জাতীয় পার্টির পীর ফজলুর রহমান এবং ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন।

সংসদে গৃহীত শোক প্রস্তাবে জাতীয় সংসদের পক্ষ থেকে প্রয়াত মোজাম্মেল হোসেনের আত্মার শান্তি ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করা হয়।

প্রস্তাব উত্থাপনের পর মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত ও এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এরপর চলতি সংসদের সদস্যের মৃত্যুতে রেওয়াজ অনুযায়ী সংসদের অধিবেশন মূলতবি ঘোষণা করেন স্পিকার।

আলোচনায় অংশ নিয়ে শেখ ফজুলুল করিম সেলিম বলেন, মানুষের সঙ্গে তার ব্যবহার ছিলো অমায়িক। তিনি মানুষের সেবা করে গেছেন। তিনি সমাজের জন্য কাজ করেছেন। তিনি আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন কিন্তু তার কর্ম আমাদের মাঝে বেঁচে থাকবে।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী কর্মসূচি বাস্তবায়নে প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকাকালে মোজাম্মেল হোসেন দক্ষতার সঙ্গে কাজ করেছেন। অসহায় মানুষকে তিনি যেভাবে সেবা করেছেন তার সেই জনেসেবা, মানব সেবা ভবিষ্যতের জন্য অনুকরণীয় হয়ে থাকবে।

মতিয়া চৌধুরী বলেন, তার বাড়ি ছিলো আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মী ও সাধারণ মানুষের জন্য ছিলো অবারিত। কোনো রোগীর টাকা না থকলে তার ওষুধ কেনার ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করতেন তিনি।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, তিনি একজন আপাদমস্তক রাজনীতিবিদ ছিলেন। তিনি রাজনীতিবিদ হিসেবে অত্যন্ত জনপ্রিয় ছিলেন। তিনি প্রসুতি মায়েদের বিনা পয়সায় চিকিৎসা করতেন।

রাশেদ খান মেনন বলেন, বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা কর্মসূচি বাস্তবায়নে তিনি দক্ষতার সঙ্গে কাজ করেছেন। তিনি চলে গেলেও তিনি যে অবদান রেখে গেছেন, তা আমাদের ভবিষ্যৎ পথ চলতে অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে।

উল্লেখ্য, এমপি মো. মোজাম্মেল হক গত ১০ জানুয়ারি মৃত্যুবরণ করেন।

এইচকে/এএসটি

Themes
ICO