Bangladesh

মায়ের কোল পেয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া কুড়িয়ে পাওয়া সেই শিশু

ব্রাহ্মণবাড়িয়াঅবশেষে মায়ের কোলে ঠাঁই পেয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সড়কের পাশ থেকে কুড়িয়ে পাওয়া ৬ মাস বয়সী সেই ছেলে শিশুটি। আদালতের মাধ্যমে পাঁচ লাখ টাকার বন্ডে শিশুটিকে দত্তক হিসেবে গ্রহণ করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার সন্তানহীন এক শিক্ষক দম্পতি। শিশুটির দত্তক নেওয়া মা-বাবা দু’জনই সরকারি কলেজের শিক্ষক।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাসুদ পারভেজের নির্দেশে বৃহস্পতিবার (৩ ডিসেম্বর) বিকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. শওকত হোসেন দত্তক মায়ের কোলে শিশুটিকে তুলে দেন।

আদালতের শর্তানুযায়ী দত্তক পিতা-মাতা শিশুটিকে নিজের সন্তানের মর্যাদায় লালন-পালন ও সুশিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলবেন। তাদের সন্তান জন্মলাভ করলেও দত্তক নেওয়া শিশুটিকে সন্তানের মর্যাদায় লালন, সুশিক্ষায় শিক্ষিত করাসহ তাদের সম্পত্তির উত্তারাধিকার করতে হবে। যদি কখনও শিশুটির প্রকৃত মা-বাবা উপযুক্ত প্রমাণ দিয়ে শিশুটিকে নিতে চায় তাহলে শিশুটিকে প্রকৃত অভিভাবকের কাছে ফেরত দিতেও বাধ্য থাকবেন তারা।

এছাড়া শিশুটির সঠিক পরিচর্যা ও দেখভাল হচ্ছে কিনা তা যাচাই-বাছাই করে জেলা সমাজসেবা অফিসারকে প্রতিবেদন দাখিলেরও নির্দেশ দেন আদালত।

শিশুটিকে দত্তক নেওয়া শিক্ষক বলেন, গত ২৯ নভেম্বর রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই শিশুটিকে সড়কের পাশ থেকে কুড়িয়ে পাওয়ার পোস্ট দেখতে পাই। এরপর আমার পরিবার শিশুটিকে নেওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করে।

তিনি আরো জানান, প্রায় ১৮ বছর বিবাহিত জীবনে তাদের পরিবারে কোনও সন্তান না থাকায় আইনি প্রক্রিয়ায় আদালতের মাধ্যমে পাঁচ লাখ টাকা বন্ড আর কিছু শর্তের মাধ্যমে তিনি শিশুটিকে গ্রহণ করেছেন।

ওই শিক্ষকের স্ত্রী বলেন, আগেও আমরা একটি মেয়ে বাচ্চা নিয়ে তাকে পড়ালেখা শিখিয়েছি। সে এখন অনেক বড় হয়েছে। আমাদের দুই জনের একটি ছেলে সন্তানের খুব ইচ্ছা ছিল। সে কারণে আজ এই বাচ্চাটির জন্য আমরা আবেদন করি। আদালতের রায়ের মাধ্যমে আমরা ছেলেটিকে পেয়েছি। তাকে আমি আমার মতো করে মানুষ করবো।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. শওকত হোসেন বলেন, বাচ্চাটি গত ২৯ তারিখে রাতে আমাদের হাসপাতালে ভর্তি হয়। এর পর থেকেই আমাদের হাসপাতালের নার্স থেকে শুরু করে সবাই তার চিকিৎসার জন্য কাজ করেছেন। আজ বাচ্চাটি একটি নির্দিষ্ট ঠিকানা পেয়েছে, এটা আমাদের আত্মতৃপ্তি দিয়েছে। আমরা অনেক খুশি।

গত ২৯ নভেম্বর সন্ধ্যায় সদর উপজেলার বাসুদেব ইউনিয়নের ঢাকা-আগরতলা মহাসড়কের পাশে দুবলা গ্রামের একটি সড়কের পাশ থেকে দুবলা গ্রামের কৃষক জহিরুল ইসলাম ও তার স্ত্রী পারভীন আক্তার শিশুটিকে উদ্ধার করেন। পাঁচ মাস বয়সী শিশুটিকে সেখানে একটি কলাগাছের ঝোঁপে কাপড় দিয়ে মোড়ানো অবস্থায় ফেলে যায় কে বা কারা। শিশুটির কান্না শুনে জহিরুল ইসলাম ও তার স্ত্রী পারভীন আক্তার তাকে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে যান ও বিষয়টি গ্রামের গণ্যমান্য ব্যক্তিসহ পুলিশকে অবহিত করেন।

পরে রাতের বেলা সদর থানার পুলিশ শিশুটিকে জহিরুল ইসলামের বাড়ি থেকে উদ্ধার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসে ও হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে ভর্তি করে। কোনও অভিভাবক না থাকায় নার্সদের সঙ্গে জহিরুল ইসলাম দম্পতি শিশুটিকে দেখাশোনা করেছেন। পরে তারা শিশুটিকে দত্তক নিতে আগ্রহও প্রকাশ করেছিলেন।

Football news:

Chiesa injured his ankle. He was replaced in the match against Napoli
Neuer on Bayern's two consecutive wins: This is a message to the competitors
Gattuso about 0:2 with Juve: Insigne should not think that Napoli lost because of him
Nepomnyashchy against reducing the RPL to 12 clubs: Russia is not ready to sacrifice a large number of fans
Wolverhampton loan Willian Jose from Sociedad with a buy-out option
AC Milan are close to loaning Tomori to Chelsea with a 20+ million euro buy-out option
Spartak about fans convicted for fighting at Euro 2016: Fedun personally helped them financially