Bangladesh
This article was added by the user . TheWorldNews is not responsible for the content of the platform.

শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার মৌলিক কারুকৃৎ

শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার মৌলিক কারুকৃৎ। তার মানবসময়ে ধরা আছে নিজ দেশ ও গোটা ধরিত্রীর মঙ্গলভাবনা। বঙ্গবন্ধুর রক্ত ও রাজনীতির সুযোগ্য উত্তরাধিকার শেখ হাসিনাও দেশের আপামর মানুষকে নিয়ে সবসময় ভাবছেন। বৈরী স্রোতের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে তিনি আমাদের স্বপ্ন দেখিয়েছেন এবং একের পর এক স্বপ্নের বাস্তবায়ন করে চলেছেন।

বুধবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বিকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৭তম জন্মদিন উপলক্ষে বাংলা একাডেমি আয়োজিত আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে চারদিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালার তৃতীয় দিন ‘লেখক ও সম্পাদক শেখ হাসিনা’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন।

বাংলা একাডেমির সভাপতি কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেনের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতি সচিব খলিল আহমদ।

অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক ছিলেন- প্রেস ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশ (পিআইবি)-এর মহাপরিচালক জাফর ওয়াজেদ। আলোচনাক ছিলেন জাতীয় সংসদের সাবেক সদস্য অধ্যাপক অপু উকিল এবং জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্রের পরিচালক কবি মিনার মনসুর।

স্বাগত বক্তব্য দেন- একাডেমির মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা।

ধন্যবাদ জানান বাংলা একাডেমির সচিব (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ড. মোঃ হাসান কবীর।

সেলিনা হোসেন বলেন, শেখ হাসিনার জন্মদিনে আমাদের প্রত্যয় হোক অসাম্প্রদায়িক-দারিদ্র্যমুক্ত বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলার আশু বাস্তবায়ন।

মুহম্মদ নূরুল হুদা বলেন, শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার মৌলিক কারুকৃৎ তিনি। তার মানবসময়ে ধরা আছে নিজ দেশ ও গোটা ধরিত্রীর মঙ্গলভাবনা। আমাদের মাঙ্গলিক অগ্রযাত্রায় শেখ হাসিনা সবসময় তার সৃষ্টিশীলতার নব নব প্রকাশ ঘটিয়ে চলেছেন।

খলিল আহমদ বলেন, বঙ্গবন্ধু যেমন দেশবাসীকে স্বাধিকার থেকে স্বাধীনতার দিকে পরিচালিত করতে সক্ষম হয়েছিলেন; সাড়ে সাত কোটি মানুষকে চূড়ান্ত স্বাধীনতার জন্য প্রস্তুত করেছিলেন এবং স্বাধীনতা আনয়ন করেছিলেন তেমনি তার রক্ত ও রাজনীতির সুযোগ্য উত্তরাধিকার শেখ হাসিনাও দেশের আপামর মানুষকে নিয়ে সবসময় ভাবছেন। নতুন নতুন স্বপ্ন দেখাচ্ছেন এবং ক্লান্তিহীনভাবে সেসব স্বপ্নের সফল বাস্তবায়ন করে চলেছেন।

জাফর ওয়াজেদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত কর্মের সুষ্ঠু বাস্তবায়ন করে চলেছেন। তিনি শিক্ষা, কর্মসংস্থান, খাদ্যনিরাপত্তা, নারীর স্বাধীনতা ও ক্ষমতায়ন এবং দুর্যোগ মোকাবেলার নতুন নতুন রেকর্ড স্থাপন করেছেন। বৈরী স্রোতের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে তিনি আমাদের স্বপ্ন দেখিয়েছেন এবং একের পর এক স্বপ্নের বাস্তবায়ন করে চলেছেন।

অপু উকিল বলেন, শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে প্রগতির পথে, উন্নয়নের পথে, শান্তির পথে এগিয়ে নিয়ে গেছেন। তার জন্মদিন মানে শুভ ও কল্যাণের পথে আমাদের সবার এগিয়ে যাওয়ার প্রত্যয়।

মিনার মনসুর বলেন, শেখ হাসিনা তার ধারাবাহিক নেতৃত্বে বাংলাদেশকে উন্নত-আধুনিক রাষ্ট্রে পরিণত করার দ্বারপ্রান্তে নিয়ে চলেছেন।

অনুষ্ঠানে বাংলা একাডেমি প্রকাশিত দুটি বই শেখ হাসিনার স্বপ্নকথা এবং গণতন্ত্রের মনোকন্যা শেখ হাসিনা : শত শিশু-কিশোরের শত কবিতায় জন্মদিনের শুভকামনা-এর গ্রন্থ-উন্মোচন করা হয়।

আলোচনা অনুষ্ঠান শেষে শিল্পী লাল মাহমুদের পরিচালনায় কিশোরগঞ্জের শিল্পীদের পরিবেশনা ‘শেখ হাসিনার উন্নয়নের পুথি’ এবং আবৃত্তি সংগঠন ‘কল্পরেখা’র প্রযোজনায় মুহম্মদ নূরুল হুদা রচিত কাব্য-ভিত্তিক আবৃত্তিনাট্য ‘শেখ হাসিনার মানবসময়’ পরিবেশন করা হয়।

এআই