Bangladesh
This article was added by the user . TheWorldNews is not responsible for the content of the platform.

তামিমকে নিয়ে ফিজিওর রিপোর্টে যা ছিল

তামিম ইকবাল বিশ্বকাপ দলে নেই। পুরোপুরি ফিট নয় বলে তাকে বাদ দিয়ে বিশ্বকাপের দল ঘোষণা করেছে বিসিবি। বিশ্বকাপের দল ঘোষণার পর জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক গণমাধ্যমকে জানান, ফিজিওর রিপোর্ট অনুসারে তামিম পুরোপুরি ফিট নন। যে কারণে তাকে বিশ্বকাপ দলে রাখা হয়নি।

কিন্তু দেশ সেরা ওপেনার তামিম ইকবাল বলছেন উল্টো কথা। তাকে বিশ্বকাপে ওপেনিংয়ের পরিবর্তে নিচের দিকে ব্যাটিং করতে বলা হয়। আফগানিস্তান ম্যাচে খেলতে নিষেধ করা হয়। শুধু তাই নয় বিশ্বকাপে তাকে অনেক জিনিসের সঙ্গে মানিয়ে নিয়ে খেলতে বলা হয়।

বুধবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুকে এক ভিডিওবার্তায় তামিম ইকবাল এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে কথাটা, যেটা ফিজিওর রিপোর্টে ছিল, আমি আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করি। কেউ যদি চ্যালেঞ্জ করতে চায়, তাকে মোস্ট ওয়েলকাম। পাবলিক ফোরামে বসেন, বলেন যে আমি ভুল করেছি। ফিজিওর রিপোর্ট যেটা ছিল, আমার কন্ডিশনটা বলা হয়েছিল। প্রথম ম্যাচের পর এমন পেইন হয়েছে। দ্বিতীয় ম্যাচের পর এমন পেইন হয়েছে। আর আজকের দিন হিসাবে হি ইজ অ্যাভাইলেবল ফর সিলেকশন ফর দ্য টুয়েন্টি সিক্সথ (২৬ সেপ্টেম্বর) গেম।

বাট মেডিকেল ডিপার্টমেন্ট মনে করে যদি আমি রেস্ট নিই, টুয়েন্টি সিক্সথ আমাদের অনুশীলন ছিল, টুয়েন্টি সেভেনথ আমাদের ট্রাভেলিং ছিল, টুয়েন্টি এইটে আমাদের একটা প্র্যাকটিস গেম। তারপর এক-দুই তারিখে আরেকটি প্র্যাকটিস গেম। আমি যদি এখন রেস্ট নিই, আমি যদি দ্বিতীয় প্র্যাকটিস ম্যাচটা খেলি তাহলে পর্যাপ্ত সময় পাব। রিহ্যাবও হয়ে যাবে ওভারঅল ১০ সপ্তাহের রিহ্যাব হয়ে যাবে। সেক্ষেত্রে প্রথম ম্যাচটা খেলার জন্য খুব ভালো অবস্থায় থাকব।

ভিডিও বার্তায় তামিম আরো বলেন, ‘নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচের পর মানসিকভাবে আমি খুব খুশি ছিলাম। গত চার-পাঁচ ম্যাচের যত বিষয় সব ভুলে গিয়েছিলাম। ম্যাচ শেষে আমার ইনজুরির অবস্থা ফিজিওকে জানাই। তখন ড্রেসিংরুমে নির্বাচকরা আসেন। আমি তাদের বলেছিলাম, আমার অবস্থা সামনে এমনই থাকবে। আমাকে দলে রাখলে বিষয়টি মাথায় রাখবেন। হোটেলে যাওয়ার পর আমাকে ফিজিও পর্যবেক্ষণ করেন।

এআই