logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo
star Bookmark: Tag Tag Tag Tag Tag
Bangladesh

জাকির নায়েককে ভারতের হাতে তুলে দেবে না মালয়েশিয়া

বিতর্কিত বক্তব্য দিয়ে ব্যাপক তোপের মুখে থাকলেও ভারতে ফেরার মত বড় বিপদে পড়তে হচ্ছে না বহুল আলোচিত ভারতীয় ইসলাম প্রচারক জাকির নায়েককে। মালয়েশিয়ার বিভিন্ন মহল থেকে জাতীয় সংহতি নষ্টের অভিযোগে সে দেশে অবস্থানরত জাকির নায়েককে বহিষ্কার করার দাবি উঠলেও তাতে সায় দেননি দেশটির প্রধানমন্ত্রী ড. মাহাথির মোহাম্মদ। তিনি বলেছেন, আপাতত তাকে (জাকির নায়েক) বহিষ্কারের কোনো পরিকল্পনা নেই। আজ বৃহস্পতিবার কুয়ালালামপুরে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি সরকারের এই অবস্থানের কথা জানান।

অন্যদিকে ভারতের পক্ষ থেকে জাকির নায়েককে তাদের হাতে তুলে দেওয়ার যে দাবি জানানো হচ্ছে সেটিকেও নাকচ করে দিয়েছেন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী। তিনি বেশ স্পষ্ট করে বলেছেন, তারা তাকে ভারতে ফেরত পাঠাবেন না।

খবর নিউ স্ট্রেইট টাইমস অনলাইন, দ্যা মালয়েশিয়ান ইনসাইট ও ফ্রি মালয়েশিয়া টুডে’র।

উল্লেখ, ভারতের নাগরিক ডাক্তার জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে দেশটির সরকার ২০১৬ সালে জঙ্গীবাদে উস্কানি দেয়া এবং অর্থ পাচারের অভিযোগ তুলে। এমন অবস্থায় হজ্বের উদ্দেশ্যে সৌদি আরব গিয়ে সেখান থেকে দেশে না ফিরে মালয়েশিয়ায় আশ্রয় নেন।

জাকির নায়েক অবশ্য বরাবরই তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে এসেছেন। তিনি দাবি করেন, তার বক্তৃতা শুনে ইসলামের প্রকৃত মাহাত্ম্য সম্পর্কে অবগত হয়ে ভারতে বিপুল সংখ্যক হিন্দু ধর্মান্তরিত হওয়ায় (ইসলাম গ্রহণ) দেশটির সরকার তার উপর ক্ষুব্ধ। আর এ কারণে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা নানা অভিযোগ আনা হচ্ছে।

কিন্তু তখন থেকেই ভারত সরকার জাকির নায়েককে তাদের হাতে তুলে তথা ভারতে ফেরত পাঠানোর দাবি জানিয়ে আসছে।

zakir-naik

জাকির নায়েক

সম্প্রতি কিছু বিতর্কিত বক্তব্যের কারণে মালয়েশিয়ায় বেশ তোপের মুখে পড়েন জাকির নায়েক। দেশটি থেকে তাকে বহিস্কার করার দাবি উঠে। দফায় দফায় চলতে থাকে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদ। দেশটির পুলিশ বিভাগ তার উপর প্রকাশ্য সমাবেশে বক্তব্য রাখায় নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে।

জানা গেছে, সম্প্রতি তার এক বক্তৃতায় জাকির নায়েক বলেছিলেন, মালয়েশিয়ায় হিন্দুরা ভারতের সংখ্যালঘু মুসলমানদের চেয়ে একশ গুণ বেশি সুবিধা পায়। তার এই বক্তব্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। সেখানকার হিন্দু সম্প্রদায়সহ অনেকে তার বহিস্কার দাবি করেন। এর প্রেক্ষিতে জাকির নায়েক আরও বেশি বিপদজনক ও বিতর্কিত এক বক্তব্য দিয়ে বসেন। তিনি বলেন, তাকে বহিস্কার করার আগে মালয়েশিয়া থেকে চীনা বংশোদ্ভুতদের বের করে দেওয়া উচিত। এই বক্তব্য জন্য এখন দেশটিতে বেশ বিপাকে আছেন তিনি।

মালয়েশিয়ান সরকারের অভিযোগ, এ ধরনের বক্তব্যের মাধ্যমে তিনি মালয়েশিয়ার অসাম্প্রদায়িক চেতনা এবং জাতীয় সংহতিতে আঘাত করছেন।

জাকির নায়েক পরে অবশ্য মালয়েশিয়ায় হিন্দু এবং চীনা সম্প্রদায় সম্পর্কে তাঁর স্পর্শকাতর মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চান।

তিনি দাবি করেন, কোনো ব্যক্তি বা সম্প্রদায়কে আহত করার উদ্দেশ্যে তিনি কোনো মন্তব্য করেননি এবং তার বক্তব্যকে ভুলভাবে ব্যাখ্যা করা হয়েছে।

তারপরও জাকির নায়েককে মালয়েশিয়া থেকে বহিস্কারের দাবি থামেনি। বরং এই দাবিতে সামিল হয়েছেন দেশটির বেশ কয়েকজন মন্ত্রী এবং এমপিও।

বিতর্কিত এই মন্তব্যের পর পুলিশ এবিষয়ে তাকে গত সোমবার দশ ঘন্টা ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করে।

মঙ্গলবার দেয়া এক বিবৃতিতে জাকির নায়েক বলেন, তার কথাকে অপ্রাসঙ্গিকভাবে উদ্ধৃত করা হচ্ছে এবং বিকৃত করা হচ্ছে। তিনি দাবি করছেন, কোন ব্যক্তি বা সম্প্রদায়কে বিক্ষুব্ধ করা তার লক্ষ্য ছিল না।

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ বলেন, জাকির নায়েক তার সীমা লঙ্ঘন করেছেন। কয়েকজন মন্ত্রী তাকে মালয়েশিয়া থেকে বহিস্কার করার দাবি তুলেন।

মালয়েশিয়ার পুলিশ দেশটির সব প্রকাশ্য সভায় তার বক্তৃতা দেয়া নিষিদ্ধ করে।

উল্লেখ, মালয়েশিয়ার মোট জনসংখ্যার ৬০ শতাংশ মুসলিম। সেখানে উল্লেখযোগ্য সংখ্যায় ভারতীয় এবং চীনা বংশোদ্ভূত মানুষও রয়েছে।

হিন্দু ও চাইনিজদের বিষয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের কারণে ড. মাহাথির মোহাম্মদ জাকির নায়েকের প্রতি বিরক্তি প্রকাশ করলেও এখনই তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার পক্ষপাতি নন। আর সে কারণেই তিনি তাকে ভারতের হাতে তুলে দেওয়ার বিরোধী। আজ তার সেই অবস্থান আবারও পুনর্ব্যক্ত করেছেন তিনি।

All rights and copyright belongs to author:
Themes
ICO