logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo logo
star Bookmark: Tag Tag Tag Tag Tag
Bangladesh

লামায় স্কুলছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগ

বান্দরবানের লামা উপজেলায় দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ওই স্কুলছাত্রী ও তার মা লামা থানায় এসে অবস্থান নিয়েছেন। তবে অভিযোগ উঠেছে, ধর্ষণে অভিযুক্ত যুবককে স্থানীয় মোড়লদের সহযোগিতায়নিরাপদ স্থানে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। ওই যুবকের নাম মো. আমীর হোসেন (২৫)।

শুক্রবার রাত আটটার দিকে লামা থানায় অবস্থান করছিলেন ওই ছাত্রী ও তারা মা। ছাত্রীর মা অভিযোগে বলেন, ‘আমার মেয়েকে বাড়ির পাশের যুবক মো. আমীর হোসেন উত্ত্যক্ত করত। বৃহস্পতিবার দিনগত গভীর রাতে আমার হঠাৎ ঘুম ভেঙে গেলে দেখি মেয়ে বিছানায় নেই। বাড়ির সব জায়গায় খোঁজাখুঁজি করি। তাকে না পেয়ে বাড়ির সামনে আমীর হোসেনের মাকে ঘুম থেকে ডেকে তুলি। পরে আমিরকে ডেকে তোলা হলে তাঁর কক্ষে মেয়েকে অজ্ঞান অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখি। আশপাশের লোকজনের সহায়তায় মেয়েকে উদ্ধার করে বাড়িতে আনা হয়। সকালে মেয়ে জানায়, রাত দেড়টার দিকে সে ঘরের বাইরে শৌচাগারে যায়। সে সময় তার মুখ ও চোখ চেপে ধরে তুলে নিয়ে যায় আমির হোসেন ও তাঁর মামা জামাল। পরে আমির হোসেন তার থাকার কক্ষে মেয়েকে ধর্ষণ করে। সকালে ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হোসেন বাদশা ও স্থানীয় মোড়লদের বিষয়টি জানানো হয়। বিষয়টি আমলে না নিয়ে তারা হাসি-ঠাট্টা করে। পরে বিকেল চারটায় মেয়েকে নিয়ে লামা থানায় অবস্থান নিই।’

এ ঘটনায় ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. হোসেন বাদশা প্রথম আলোকে বলেন, সকাল আটটার সময় মেয়ের মা ও তার কয়েকজন আত্মীয় এসে প্রতিবেশী আমীর হোসেন তার স্কুলপড়ুয়া মেয়েকে ধর্ষণ করেছে বলে জানায়। বিষয়টি নিয়ে আমির হোসেনের বাবা ও তার বড় ভাইয়ের সঙ্গে আলাপ করি। তবে আমির হোসেন উপস্থিত না থাকায় বিষয়টির কোনো সমাধান হয়নি।

এ বিষয়ে শুক্রবার রাত নয়টার সময় লামা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অপ্পেলা রাজু নাহার প্রথম আলোকে বলেন, ‘প্রতিবেশী এক যুবক দশম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে এমন অভিযোগ নিয়ে ওই ছাত্রীর মা থানায় মামলা করতে এসেছেন। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।’

All rights and copyright belongs to author:
Themes
ICO