Bangladesh
This article was added by the user Anna. TheWorldNews is not responsible for the content of the platform.

রাহাত হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ

দক্ষিণ সুরমা কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র আরিফুল ইসলাম রাহাত (১৮) হত্যাকারীদের আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে গ্রেপ্তার না হলে আন্দোলনেরও হুমকি দিয়েছেন কলেজ অধ্যক্ষ সামসুল ইসলাম।

রোববার (২৪ অক্টোবর) দুপুর ২টায় কলেজ প্রাঙ্গনে সংবাদ সম্মেলন করেন দক্ষিণ সুরমা কলেজের অধ্যক্ষ সামসুল ইসলাম এ কথা জানান।

এদিকে রাহাতের হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের চন্ডিপুলে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন সহপাঠিরা।  এসময় পুলিশের ঊর্ধতন কর্মকর্তারা আন্দোলনকারীদের তোপের মুখে পড়েন।

আরো পড়ুন: কলেজছাত্র রাহাত হত্যার ঘটনায় মামলা 

সংবাদ সম্মেলনে সামসুল ইসলাম বলেন, ‘রাহাত হত্যার ঘটনায় আসামীদের এখনও গ্রেপ্তার করা হয়নি। ছাত্ররা রাস্তায় নেমে গেলে পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারন করতে পারে। আর তখন সে দায়ভার কিন্তু প্রশাসনকেই নিতে হবে।’ তাই স্থানীয় প্রশাসনসহ ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের প্রতি আসামিদের দ্রুত গ্রেপ্তার করার জোর দাবি জানাচ্ছি।

এদিকে কলেজ কর্তৃপক্ষের সংবাদ সম্মেলনের পরপরই সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভে নামে রাহাতের সহপাঠিরা। প্রায় এক ঘণ্টা তারা সড়ক অবরোধ করে রাখে।

আরো পড়ুন: সিলেটে ছুরিকাঘাতে কলেজছাত্র নিহত 

এ সময় সড়কে দুদিকে শত শত যানবাহন আটক পড়ে। এতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয় যাত্রী সাধারণকে। পরে বিকেল ৩টার দিকে সিলেট-৩ আসনের সাংসদ হাবিবুর রহমান হাবিব বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে রাহাত হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারে একাত্মতা পোষণ করে বক্তব্য রাখেন। 

তিনি দ্রুত আসামিদের গ্রেপ্তারের আশ্বাস দিলে শিক্ষার্থীরা অবরোধ প্রত্যাহার করে নেন। এ সময় সেখানে সিলেট পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত হলে শিক্ষার্থীদের তোপের মুখে পড়েন।

সিনিয়র-জুনিয়র নিয়ে পূর্ব বিবাদের জেরে বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) দুপুর সাড়ে ১২টায় দক্ষিণ সুরমা সরকারি কলেজ ফটকে রাহাতকে ছুরিকাঘাতে হত্যার পর পালিয়ে যায় ঘাতক সামসুদ্দোহা সাদি (২০)। কিন্তু খুনের ঘটনার পর এখন পর্যন্ত মামলার প্রধান আসামি সামসুদ্দোহা সাদীকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। 

সাদী বখাটে ও উশৃংখল বলে দাবি কলেজ অধ্যক্ষের। এরআগে একবার তাকে কলেজ থেকে বহিস্কারও করা হয়েছিলো বলে অধ্যক্ষ জানিয়েছেন।